ফুলবাড়িয়ায় মডেল মসজিদ ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী : চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি


প্রকাশের সময় : মার্চ ১৪, ২০২৩, ৬:০১ PM
ফুলবাড়িয়ায় মডেল মসজিদ ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী : চলছে শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি

মো. আব্দুস ছাত্তার :
ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলা পরিষদের বিপরীতে মেইন রোডের পূর্বে দৃষ্টি নন্দন মডেল মসজিদ চোখে পড়ে। এটি নির্মাণের প্রায় সকল কাজ শেষ শুধু বাকী বাহিরের বাউন্ডারী ওয়ালের কিছু অংশ। তারপরও তৃতীয় পর্যায়ে যে ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী তার একটি ফুলবাড়িয়া উপজেলায়। ভার্চুয়ালি সেই উদ্বোধনের জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। নিশ্চিন্দ্র নিরাপত্তা জোরদার করা হচ্ছে। দফায় দফায় শেষ মুহুর্তের প্রস্তুতি পরিদর্শন করছেন, উপজেলা প্রশাসন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধিরা।

জানা যায়, ‘প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬৪টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে ৫০টি করে একশটি মডেল মসজিদের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ধারাবাহিকতায় তৃতীয় ধাপে ৫০টি মডেল মসজিদের উদ্বোধন করবেন তিনি। আগামী ১৬ মার্চ সকাল ১০ টায় গণভবন থেকে যে ৩টি উপজেলায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন তার একটি ফুলবাড়িয়া। ভার্চুয়ালি যুক্ত হতে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠান আয়োজনে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

 


ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ‘মার্ক বিল্ডার্স’ সূত্রে জানা গেছে, মডেল মসজিদটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থাসহ পুরুষ, মহিলা ও প্রতিবন্ধিদের জন্য আলাদা নামাজের জায়গা রয়েছে। একসাথে অর্ধশত মানুষ অজু করতে পারবেন। থাকছে হজ গমনেচ্ছুদের জন্য রেজিস্ট্রেশন ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, গবেষণা কেন্দ্র ও ইসলামিক লাইব্রেরি, অটিজম কর্নার, দাফনের আগের আনুষ্ঠানিকতা, গাড়ি পার্কিং সুবিধা, হিফজখানা, প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা ও কোরআন শিক্ষার ব্যবস্থা, ইসলামী সাংস্কৃতিক সম্মেলন কক্ষ।
উপজেলা নির্বাহি অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ নাহিদুল করিম জানান, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন তৃতীয় পর্যায়ে যে ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুভ উদ্বোধন করবেন তা আমাদের জন্য অসম্ভব একটি পাওয়া। সে অনুযায়ী নির্দেশনা মোতাবেক আমরা আয়োজন করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের উপজেলা হতে স্থানীয় কিছু গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে মত বিনিময় করবেন। আশা করি সকলের সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি সফল হবে।
ময়মনসিংহ গণপুর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রাশেদ আহসান বলেন, মসজিদের প্রায় সকল কাজ শেষ হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনের পর পরই নামাজের জন্য মুসল্লীদের উম্মুক্ত করে দিতে পারব।

https://www.bkash.com/