মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০১:০৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
ফুলবাড়ীয়ায় “আমাদের সমাজ, আমাদের সরকার” ত্রাণ বিতরণ অপহরণকারী ইয়াবা ব্যবসায়ীর বাড়ী ভেঙ্গে আগুন দিয়েছে বিক্ষুদ্ধ জনতা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারদের মধ্যে ৫০টি পিপিই বিতরণ অসহায় ও দু:স্থদের ত্রাণ তহবিলে ১বছরের বেতন উৎসগ করলেন ফারাজানা শারমিন বিউটি স্বাস্থ্য বিধি মানতে ওয়ার্ল্ড কনসার্ন বাংলাদেশের আহ্বান ফুলবাড়িয়ায় ব্যবসায়ী সমিতি উপজেলা প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর বৈঠক অসহায় পরিবারের পাশে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা যুবলীগ খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়দের বাড়ীতে ইউএনও আশরাফুল ছিদ্দিক ও ইউপি চেয়ারম্যান বাদল করোনা ভাইরাস জনসচেতনতায় ফুলবাড়িয়ায় ব্র্যাকের ৪০জন কর্মী মাঠে করোণা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনত করতে এনায়েতপুর ইউনিয়নে ছাত্রলীগ সভাপতি

গৌরীপুরে উচ্ছেদ করা হল জয়কালী হোটেল

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :
ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরে কালীপুর বাজার পূর্বলাইন এলাকায় জয়কালী হোটেলটি উচ্ছেদ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহম্মদ আবুল মনসুরের নেতৃত্বে পুলিশ লাল নিশান টানিয়ে বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) বিকেলে এ হোটেলের নির্মাণ স্থাপনা উচ্ছেদ করেন।
নির্বাহী ম্যাজিট্রেট মুহম্মদ আবুল মনসুর সাংবাদিকদের জানান, উল্লেখিত ১নং খাস খতিয়ানের জায়গায় কে বা কারা রাতের আঁধারে অবৈধভাবে সেমিপাকা ঘর উত্তোলন করেছিল। জনস্বার্থে উক্ত অবৈধ স্থাপনাটি উচ্ছেদ করা হয়েছে।
এদিকে জয়কালী হোটেলের মালিক বাবুল চন্দ্র সরকার (৪৫) জানান, তাঁর পিতা স্বর্গীয় গোপাল চন্দ্র সরকার উপজেলা কেন্দ্রিয় সমবায় সমিতির নিকট থেকে ৪৫ হাজার টাকা জমানত দিয়ে মাসিক দেড় হাজার টাকায় ভাড়ার চুক্তিতে উল্লেখিত সেমিপাকা ঘরটিতে জয়কালী হোটেল স্থাপন করেন। প্রায় ২০ বছর ধরে ওই স্থানে তারা হোটেলের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। গৌরীপুর সোনালী ব্যাংক শাখার ২১৯ নং হিসাবের মাধ্যমে হালসন নাগাদ তাদের দোকানের ভাড়াও পরিশোধ রয়েছে। সম্প্রতি তিনি পুরাতন ঘরটির সংস্কার কাজ করছিলেন। কোন নোটিশ প্রদান ছাড়াই বৃহস্পতিবার বিকেলে সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিট্রেট মুহম্মদ আবুল মনসুরের নেতৃত্বে হোটেলের স্থাপনাটি ভাংচুর করা হয়। এতে তার প্রায় দু’লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বাবুল চন্দ্র সরকার আরো জানান, তার হোটেলের স্থানটি গৌরীপুর কেন্দ্রিয় সমবায় সমিতির নামে কাগজপত্রে উল্লেখ রয়েছে।
এ বিষয়ে মুহম্মদ আবুল মনসুর জানান, গৌরীপুর মৌজায় ৩৪১১ নং দাগে গৌরীপুর সমবায় সমিতির নামে যে জায়গা উল্লেখ রয়েছে তা উচ্ছেদকৃত স্থাপনার জায়গা নয়। যে স্থানটিতে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়েছে তা ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত জায়গা।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইট © ফুলবাড়িয়ানিউজ২৪ ডট কম ২০২০
Design & Developed BY A K Mahfuzur Rahman