শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
ফুলবাড়িয়ায় ব্যবসায়ী সমিতি উপজেলা প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর বৈঠক অসহায় পরিবারের পাশে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা যুবলীগ খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়দের বাড়ীতে ইউএনও আশরাফুল ছিদ্দিক ও ইউপি চেয়ারম্যান বাদল করোনা ভাইরাস জনসচেতনতায় ফুলবাড়িয়ায় ব্র্যাকের ৪০জন কর্মী মাঠে করোণা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনত করতে এনায়েতপুর ইউনিয়নে ছাত্রলীগ সভাপতি করোণা প্রতিরোধে ফুলবাড়িয়া পৌর সভার জীবানুনাশক স্প্রে শুরু ফুলবাড়িয়ায় করোণা প্রতিরোধের আইন না মানায় ৪ব্যবসায়ীর জরিমানা ফুলবাড়িয়ায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে উপজেলা প্রশাসনের চিরুনি অভিযান করোণা ভাইরাস : উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো: রফিকুল ইসলাম রাকিব‘র উদ্যোগ করোণা ভাইরাস : মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করলেন পৌর মেয়র গোলাম কিবরিয়া

ধলাপাড়া দেশের বৃহত্তম ‘ফার্নিচার হাট’

p1মো. নজরুল ইসলাম মধুপুর (টাঙ্গাইল) থেকে: ঘাটাইলের ধলাপাড়া দেশের বৃহৎতম রেডিমেড ফার্নিচার হাট। এ হাট থেকে প্রতি বৃহস্পতি ও সোমবার প্রায় কোটি টাকার রেডিমেড ফার্ণিচার কেনা-ঁেবচা হয়।ঢাকা,চট্রগ্রাম,ময়মনসিংহ,জামালপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন আসেন ঘরের নিত্য প্রয়োজনীয় আসবাব-পত্র কেনা-বেঁচার জন্য।
ঘাটাইল সদর থেকে ১৪ কি.মি পূর্বে এবং ভালুকা-উথরা সড়কের সাগরদিঘী থেকে ১২ কি.মি পশ্চিমে বংশাই নদীরপাড়ে অবস্থিত ধলাপাড়া হাট। এ হাট থেকে প্রতি বৃহস্পতি ও সোমবার ৫শ থেকে ৮শ বিভিন্ন প্রকারের খাঁট,সোফাসেট,ড্রেসিং টেবিল,ডাইনিং টেবিল, সুকেজ,চেয়ার-টেবিল এবং দরজা-জানালা বেঁচা কেনা হয়।
গত ২মার্চ বৃহস্পতিবার সরেজমিনে ধলাপাড়া ফার্নিচার হাটে গিয়ে-বিক্রোতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, দেশের অন্যতম বৃহৎ রেডিমেড পার্নিচার হাট ধলাপাড়া।
p2ফুলবক্স, সেমিবক্স, বেগি খাট, বোম্বাই ও রাশিয়ান খাট পাওয়া যায়। ২হাজার ৫শত টাকা থেকে ৬০ হাজার টাকা দামের খাট পাওয়া যায় এই হাটে। এছাড়াও গোল ড্রেসিং টেবিল, ছয়কোনা ড্রেসিং টেবিল, তিনচাল ড্রেসিং টেবিল, দুইচাল ড্রেসিং টেবিল ও কানিশ ড্রেসিং টেবিল এবং লতা সোফা,হাতি সুড় সোফা,বল সোফা ও বক্স সোফাসেট কেনা-বেঁচা হয় এ হাটে। নিম্নবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত পরিবারের লোকজন এ হাটের ক্রেতা।
এ হাটে ঘাটাইল ছাড়াও মধুপুর,সখীপুর,বাসাইল,কালিহাতী,ভূয়াপুরের ক্রেতা-বিক্রেতারা অতি সহজেই ঘরের নিত্য প্রয়োজনীয় আসবার পত্র কেনা-বেঁচা করে থাকেন।
কালিহাতীপ স্থানীয় ব্র্যাক ব্যাংক ব্যস্থাপক মো.আবির আজাদ এসেছেন ফর্নিচার কেনার জন্য। তিনি জানান, সাধ ও সাধ্যের মধ্যে ভালো ফার্নিচার পাওয়া যায়এ হাটে।
রঘুনাথপুর গ্রামের মো.বিÍাল হোসেন এসেছেন ঘরের খাট ও দরজা-জানালা কেনার জন্য।
তিনি জানান, নিম্নবিত্ত মানুষের জন্য এ হাটের ফার্নিচার খুবই ভালো।
এ হাটের অন্যতম বড় ফার্নিচার ব্যবসায়ী মো.আবদুল আজিজ জানান,ভৌগলিক অবস্থা এবং যাতায়াত সুবিধাজনক হওয়ায় দেশের অন্যতম বৃহৎ হাট ধলাপাড়া।
মো.মোতালেব নামের আরেক ব্যবসায়ী জানানএখনএকটু কেনা-বেঁচা কম। তবে পহেলা বৈশাখ থেকে ৫ মাস কেনা-বেঁচা বেশি।
হাটের ইজারাদার কাজী মোখলেছুর রহমান জানান,২০১৭-১৮ অর্থ বছরের জন্য ১৬ লাখ ১ হাজার টাকা দিয়ে হাট ইজারা নিয়েছি। যা গত কয়েক বছরের চেয়ে অনেক বেশি। তিনি জানান,হাটের ইজারা কমলে ক্রতারাও ফার্নিচার প্রতি খাজনাও কম পেত। প্রতিটি খাটের জন্য ৫০ টাকা থেকে ২ শ টাকা খাজনা দিতে হয় ক্রতাকে।
অধ্যাপক শেখ রফিকুল ইসলাম জানান,ধলাপাড়া ফার্নিচার হাটের সুনাম দেশের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইট © ফুলবাড়িয়ানিউজ২৪ ডট কম ২০২০
Design & Developed BY A K Mahfuzur Rahman