সাদ্দাম হুসেইনের মেয়ের সাত বছরের কারাদণ্ড


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৩, ২০২৩, ৬:৪২ PM
সাদ্দাম হুসেইনের মেয়ের সাত বছরের কারাদণ্ড

ইরাকের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হুসেইনের মেয়ে রাঘাদ হুসেইন

ইরাকের ক্ষমতাচ্যুত স্বৈরশাসক সাদ্দাম হুসেইনের মেয়ে রাঘাদ হুসেইনের সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। বাবার নিষিদ্ধ রাজনৈতিক দল ‘বাথ পার্টির’ প্রচারণা করায় তাকে এই সাজা দেওয়া হয় বলে জানা গেছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

১৬ জুলাই ১৯৭৯ থেকে ৯ এপ্রিল ২০০৩ সাল পর্যন্ত ইরাকের প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধে হেরে তার সরকারের পতন হয় এবং বন্দি হন তিনি। কুর্দি জনগোষ্ঠীর ওপর নিপীড়নের অভিযোগে ২০০৬ সালে ফাঁসি হয় সাদ্দাম হুসেইনের।

ইরান-ইরাক যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে সাদ্দাম হুসেইন ইরাকের উত্তরে বসবাসকারী কুর্দিদের বিরুদ্ধে “আল-আনফাল” নামে একটি সামরিক অভিযান চালিয়েছিলেন। উদ্দেশ্য ছিল এমন একটি গোষ্ঠীকে শাস্তি দেয়া, যারা ইরানীদের সহযোগিতা করেছিল এবং আরেকটি উদ্দেশ্য ছিল কুর্দিদের স্ব-শাসিত সমাজ ভেঙ্গে দেয়া।

নিজের শাসনামলে সাদ্দাম দৃঢ়ভাবে সরকার ও সামরিক বাহিনীর মধ্যকার বিরোধের অবসান ঘটান। তিনি আলাদা নিরাপত্তা বাহিনী গঠন করেন। ইরাকের প্রেসিডেন্ট ও বাথ পার্টির প্রধান হিসেবে সাদ্দাম হুসেইন আরব জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে ধর্ম নিরপেক্ষ ও আধুনিক ইরাক গড়ে তুলতে প্রয়াস নেন। দেশে এক দলীয় শাসন ব্যবস্থাও কায়েম করেন তিনি।সেসময়ই সাদ্দাম ইরানের সাথে ৯ বছরের যুদ্ধে জড়িয়ে পরেন।

রাঘাদ সাদ্দাম হুসেইনের বিরুদ্ধে নিষিদ্ধ বাথ পার্টির প্রচারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। ২০২১ সালে এক টিভি সাক্ষাতকারে তিনি এই পার্টির প্রশংসা করেছিলেন।

বর্তমানে ইরাকে এই দলের কোনো ছবি প্রকাশ বা স্লোগান দেওয়া অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তবে ঠিক কোন সাক্ষাতকারে রাঘাদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে তা স্পষ্ট করে বলা হয়নি। সংগৃহিত

https://www.bkash.com/