বারো বছর ব্রিজের নিচে বাস: ঘর দিলেন ইউএনও


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১০, ২০১৬, ১১:২২ AM / ১৭৯
বারো বছর ব্রিজের নিচে বাস: ঘর দিলেন ইউএনও

bhaluka-photoজাহিদুল ইসলাম খান, ভালুকা : ছবির তিনজন তিন প্রজন্মের অসহায় নারী । মা আয়েশা খাতুন (৬০) মেয়ে নাসিমা খাতুন (৪০) ও নাতনী শারমীন (৮)। তারা তিন প্রজন্ম প্রায় একযুগের ও বেশী সময় যাবত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা খিরু নদীর ব্রিজের নিচে বসবাস করে আসছেন। আয়েশা ও তার মেয়ে নাসিমা নাতনী শারমীনের জন্মের পর সেও আট বছর যাবত আছে মা ও নানীর সঙ্গে । মা ও মেয়ে ভালুকা বাজারে মাছের আড়তে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছে পাশাপাশি নাতনী শারমীন তাদের কাজে সহায়তা করে। ব্রিজের নিজ থেকেই দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন বলে জানান আয়েশা খাতুন। ১২বছরে ঝড়,বৃষ্টি, বন্যা, ভূমিকম্প এমনকি ব্রিজ থেকে নদীতে গাড়ি পড়ে যাওয়া-সবই ওখানে বসে দেখেছেন তারা। তাদের জন্ম সূত্রে বাড়ী উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের কাতলামারী গ্রামে। ওখানে কোন জমিজমা না থাকায়,আজ থেকে বারো বছর আগে আয়েশা খাতুন মেয়েদের নিয়ে ভালুকা সদরের একটি বাসার বারান্দায় আশ্রয় নেয়। কয়েকদিন পর বাড়ীর মালিক তাদের তাড়িয়ে দেওয়ায় ভালুকা খিরু ব্রিজের নিচে বসবাস শুরু করেন। আয়েশা ও তার মেয়ে ইতিমধ্যে পৌরসভার ভোটার হয়েছেন। কিন্তু নাগরিক সকল সুবিধা থেকে বঞ্চিত তারা।
ভালুকা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফরোজা আক্তার সম্প্রতি খিরু নদীর পাড়ে বালু সংরক্ষন করে এক শ্রেণীর লোক নদী ভরাট করছে,এমন অভিযোগ পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত নিয়ে সেখানে গেলে খীরু ব্রিজের নীচে এই পরিবারটির সন্ধান পান। পরবর্তীতে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল আহসান তালুকদারকে অবহিত করা হলে, তিনি তিন প্রজন্মের তিন নারী আয়েশা খাতুন, নাছিমা খাতুন,ও শারমিনকে তার অফিসে নিয়ে আসেন। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাদেরকে আশ্রয়ন প্রকল্পের একটি ঘর দেওয়ার কথা বললে প্রথমে তারা রাজী হন। কিন্তু সেখানে আয় রোজগারের কোন ব্যবস্থা না থাকায় তারা আশ্রয়ন প্রকল্পে যেতে অস্বীকৃতি জানান।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল আহসান তালুকদার জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভূমিহীনদের বাড়ি দেওয়ার যে প্রকল্প গ্রহন করেছে সে প্রকল্পের আওতায় তাদেরকে একটি বাড়ি বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব অতি শীঘ্রই প্রেরণ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এখন থেকে তারা আর ব্রিজের নিচে থাকবে না। তাদের জন্য একটি রুম ভাড়া করে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।