বরুকা ২৪ সদস্যের পরিবারকে ভিটে মাটি থেকে উচ্ছেদ : হত্যার হুমকি


প্রকাশের সময় : জুন ২৮, ২০১৬, ১০:১৭ AM
বরুকা ২৪ সদস্যের পরিবারকে ভিটে মাটি থেকে উচ্ছেদ : হত্যার হুমকি

আবুল কালাম, ফুলবাড়িয়া নিউজ 24 ডটকম : ফুলবাড়ীয়া উপজেলার বরুকা গ্রামে ২৪ সদস্যের এক পরিবারকে ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। ৬ ভাইয়ের আশ্রয় হয়েছে পরের বাড়ীতে। ফলে নানা সমস্যার পাশাপাশি শিশুদের লেখাপড়া বিঘ্নিত হচ্ছে। উচ্ছেদ হওয়া পরিবারের অভিযোগ প্রভাবশালী মহলটির নামে থানায় অভিযোগ করেও কোন আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করায় না করায় পূনঃরায় বাড়ী ঘরে হামলা করে ভাংচুর করেছে।
উপজেলার বরুকা গ্রামের দরিদ্র রহুল আমীন তার ৬ ভাই পিতার ক্রয় করা জমিতে ঘরবাড়ী উত্তোলন করে দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছে। পাশ্ববর্তী বাড়ী আঃ হাই মাস্টারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছে। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে আঃ হাই মাস্টার তার ছেলে শাহজাহান কবীরকে দিয়ে থানায় একটি মিথ্যে অভিযোগে মামলা করে রহুল আমীনকে গ্রেফতারের পর বাকী ভাই ও তার পরিবারের ২৪ সদস্যের পরিবারকে গত ১৮ মে ভিটে মাটি থেকে পিটিয়ে উচ্ছেদ করে দেয়। ভিটে মাটি থেকে উচ্ছেদের ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পরও পুুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করায় প্রভাবশালী মহল বাড়ী ঘরে পূনঃরায় হামলা করে ভাংচুর করেছে।
২৪ সদস্যের ঐ পরিবার জীবন রক্ষার্থে পরের বাড়ীতে আশ্রয় নিয়েছে। পরের বাড়ীতে আশ্রয় নেয়ায় ৬ ছাত্র/ছাত্রীর লেখা পড়া বিঘিœত হচ্ছে।
এ বিষয়ে আঃ হাই মাস্টার উগ্র মেজাজে জানান, আপনারা সাংবাদিকরা আমার ক্ষতিও করতে পারবে না ভালও করতে পারবেন না। ভিটে মাটি ছেড়ে তারা চলে গেছে এটা আমাদের কি। পাইলে তারা থাকুক।
এ ব্যাপারে রহুল আমীন জানান, আমরা দরিদ্র মানুষ। আঃ হাই মাস্টার নিজ সন্তানকে মানুষ দিয়ে হত্যা করেছে। এখন আমাদের ৬ ভাইকে হত্যা করে জমি আত্নসাৎ করার জন্য মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। আমার ২৪ সদস্যের পরিবারে ৬ জন ছাত্র/ছাত্রী রয়েছে। তাদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে প্রশাসন তাদের দিকে সুনজর দিলে তাদের প্রান রক্ষা পাবে।
ফুলবাড়ীয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিফাত খান রাজিবের সাথে দুপুর ২ টা ৩ মিনিটে মোবাইলে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

https://www.bkash.com/