রবিবার, ০৩ Jul ২০২২, ০৯:২৭ অপরাহ্ন

‘প্লিজ কেউ একজন হিরো আলমকে থামান’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচিত-সমালোচিত তারকা আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। গান আর অভিনয় নিয়ে আপন গতিতে এগিয়ে চলছেন তিনি। আলোচনা-সমালোচনার কোনো কিছুই তোয়াক্কা না করে নতুন নতুন গান আর অভিনয় চালিয়ে যাচ্ছেন হিরো আলম।

সবশেষ হিরো আলম প্রকাশ করেছেন রবীন্দ্রসংগীতের জনপ্রিয় গান ‘আমারও পরানো যাহা চায়’। নেক্সট এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে প্রকাশিত এই গানটি নিয়ে নেট দুনিয়ায় চলছে তুমুল নেতিবাচক মন্তব্য। বিকৃতভাবে রবীন্দ্রসংগীত গাওয়ার অভিযোগও উঠেছে।হিরো আলমের গান নিয়ে আর চুপ না থেকে এবার কথা বলেছেন সমাজের প্রতিষ্ঠিত মানুষজন।

পুলিশের সাইবার ক্রাইমের ডেপুটি কমিশনার নাজমুল ইসলাম তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নানা কারণে জনাব হিরো আলম আমার অফিসে এসেছেন, কখনো অভিযোগ করতে আবার কখনো অভিযুক্ত হয়ে। আমি অবশ্যই তার ব্যক্তি স্বাতন্ত্র্যবোধ ও স্বাধীনতাকে সম্মান করি। সংস্কৃতি চর্চার অধিকার তার আছে। নানা সময়ে তিনি মৌলিক বা যৌগিক গানের সারথি হয়েছেন, সেটাও তার অভিরুচি। অনেকেই বলছে কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাকে মনে হয় আর একটু সাবধানী হওয়া উচিত; যেমন, রবি বাবুর গান মনে হয় এপার ওপার বাংলার অসংখ্য মানুষের আবেগের জায়গা, তাদের মতে সেই আবেগের প্রতি তিনি মনে হয় খুব একটা যত্নশীল হননি বা সুবিচার করতে পারেননি। তবে ফলাফল negative/positive যাই আসুক না কেন, অনেকেই হয়তো এই অনভিপ্রেত অবিচারের জন্য competent authorities এর কাছে সুবিচার চাবে। তবে এই স্বাতন্ত্র্যবোধ ও স্বাধীনতার সাথে মানুষের অভিযোগের দ্বৈরথকে কিভাবে দেখছে নেটিজেন!?’

তার এই স্ট্যাটাসে মন্তব্য করেছেন নির্মাতা শাহাদাত রাসএল। লিখেছেন, ‘ও যেটা করেছে সেটা সরাসরি গানের কথা ও সুরের বিকৃতি। গান গাইবার অধিকার সবার আছে কিন্তু বিকৃতি করার অধিকার কারো নেই। এমন কি গানের বাণিজ্যিক রিমেক বা ব্যবহার কররে করতে গেলেও এখানে মূল গায়কের বা গানের সত্ত্বাধিকারীর অনুমতি নেয়া জরুরি। কারো সৃষ্টি নিয়ে এভাবে ফাতরামি করার অধিকার কারো নেই। এই উদ্ভট অমানুষকে থামানো জরুরি। নাজমুল ভাই প্লিজ কিছু করুন।’

সংগীতশিল্পী বেলাল খান লিখেছেন, ‘ওর এইসব শিল্প মানহীন কন্টেন্টে মোটেও দেশ জাতির কোন উপকার নেই এবং এগুলো যেহেতু সে এখন বানিজ্যিক ভাবে নিয়মিত করছে তাই আমাদের উচিত ওর সবকিছুই এড়িয়ে যাওয়া।’

সংগীতশিল্পী লুৎফর হাসান লিখেছেন, ‘তাকে নিয়ন্ত্রণ জরুরি, প্লিজ ভাই।’

পুলিশের সাইবার ক্রাইমের ডেপুটি কমিশনারের স্ট্যাটাসে এরই মধ্যে ১৮৮ মন্তব্য পড়েছে। যার বেশির ভাগ মন্তব্যই হিরো আলমের বিপক্ষে। আর অনেকেই দিয়ে বলেছেন, ‘প্লিজ কেউ একজন হিরো আলমকে থামান’।

Please Share This Post in Your Social Media

কপিরাইট © ফুলবাড়িয়ানিউজ২৪ ডট কম ২০২০
Design & Developed BY A K Mahfuzur Rahman