ব্রেকিং নিউজঃ-
Home » ময়মনসিংহ » গৌরীপুর » গৌরীপুরে মসজিদের জমি নিয়ে বিরোধে নামাজ পড়ছেনা মুসল্লীরা

গৌরীপুরে মসজিদের জমি নিয়ে বিরোধে নামাজ পড়ছেনা মুসল্লীরা

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

gouripur maszid pic 07.10(2)

মশিউর রহমান কাউসার, গৌরীপুর : ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার কিল্লাতাজপুর পূর্বপাড়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধে স্থানীয় হাসমত তালুকদার (৪৮) নামে এক ব্যক্তির হুমকীতে গত দু’দিন ধরে মসজিদে নামাজ পড়ছেননা মুসল্লীগণ। ১৭ বছর আগে সহোদর ভাই কর্তৃক মসজিদের নামে ওয়াকফ করে দেয়া জমি বর্তমানে নিজের দাবি করে উল্লেখিত ব্যক্তি মুসল্লীদের নামাজ পড়তে নিষেধ করে এবং নানা হুমকী দেয়। ফলে শুক্রবার (৬ অক্টোবর) আছর থেকে ওই মসজিদে আযান দেয়া ও নামাজ পড়া বন্ধ করে দিয়েছে মুসল্লীরা। এ ঘটনায় স্থানীয় মুসল্লীদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। স্থানীয় সাবেক ইউপি মেম্মার ওই মসজিদের মুসল্লী নূরুল হক (৫৫) এ বিষয়ে বলেন, ২০০০ ইং সনে এই মসজিদটি স্থাপিত হয়েছে। ওই সময় মসজিদের নামে ২০ শতক জমি ওয়াকফ করে দিয়েছিলেন এ গ্রামের মৃত হাশেম তালুকদারের পুত্র ব্যারিস্টার শওকত মোস্তফা হাসান তালুকদার। সম্প্রতি উক্ত মসজিদের জমি তার ছোট ভাই হাসমত তালুকদার নিজের বলে দাবি করে আসছে। এনিয়ে মসজিদের মুসল্লীদের সাথে তার প্রতিনিয়ত বাক-বিতন্ডা হতো। মঙ্গলবার মসজিদের সংস্কার কাজ নিয়ে মুসল্লীদের মাঝে আলোচনা চলছিল। এসময় হাসমত উত্তেজিত হয়ে হুমকী প্রদান করে তার জমিতে মসজিদের সংস্কার কাজ করতে দিবে না। হাসমতের অব্যাহত হুমকীর মুখে আতংকিত মুসল্লীগণ শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর সিদ্ধান্ত নেয় ওই জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এ মসজিদে তারা আর নামাজ আদায় করবেনা। এরপর থেকে মুসল্লীদের সিদ্ধান্তক্রমে মসজিদে আযান দেয়া ও নামাজ পড়ানো বদ্ধ রেখেছেন মোয়াজ্জিন। মসজিদের মোয়াজ্জিন মোঃ জামাল উদ্দিন ঘটনার সত্যত্য স্বীকার করে বলেন, আমি ১৭ বছর ওই মসজিদে বিনা বেতনে নামাজ পড়িয়ে আসছি। স্থানীয় কতিপয় মুসল্লীদের চাপে ও উল্লেখিত হাসমতের হুমকীর মুখে দু’দিন ধরে মসজিদে আযান দেয়া ও নামাজ পড়ানো থেকে বিরত রয়েছি। এদিকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন, স্থানীয় মুসল্লী মুজিবুর রহমান, আব্দুল মোতালিব, আব্দুল হক, কামাল উদ্দিন, সোহেল রানা প্রমুখ। এবিষয়ে মন্তব্য জানার জন্য শনিবার বিকেলে কিল্লাতাজপুর গ্রামে হাসমত তালুকদারের বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

Related posts:

About fulbaria

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*