ব্রেকিং নিউজঃ-
Home » ময়মনসিংহ » গৌরীপুর » গৌরীপুরে পিডিবি’র বিদ্যুত লাইন পরিচালনায় সংঘবদ্ধ চক্রের বাণিজ্য !

গৌরীপুরে পিডিবি’র বিদ্যুত লাইন পরিচালনায় সংঘবদ্ধ চক্রের বাণিজ্য !

Share on Facebook152Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

bidduth-03.10গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের গৌরীপুরে পিডিবি’র বিদ্যুত লাইন পরিচালনা করে বাণিজ্য করছে স্থানীয় একটি সংঘবদ্ধ চক্র। হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে বিদ্যুত গ্রাহকদের হাজার হাজার টাকা। পিডিপির লোকজনের পরিবর্তে চক্রটি গ্রাহকদের নিকট থেকে চাঁদা নিয়ে নতুন সংযোগ দেয়া ও কর্তনের দায়িত্ব পালন করছে। ঘটনাটি ঘটছে এ উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের পাঠানটুলা গ্রামে। জানা গেছে, স্থানীয় কালিবাড়ি থেকে পাঠানটুলা গ্রামে প্রায় দেড় কিঃ মিঃ ব্যাপী পিডিবি কর্তৃক নতুন বিদ্যুত লাইন স্থাপন করা হয় ছয় মাস পূর্বে। এক্ষেত্রে প্রথম অবস্থায় স্থানীয় ৮২ জন গ্রাহকের নিকট থেকে মিটার প্রতি ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা করে আদায় করে ৮/১০ জনের ওই চক্রটি। পরবর্তীতে নতুন সংযোগ দেয়ার ক্ষেত্রে আরো গ্রাহকের কাছ থেকে ৫ হাজার করে আদায় করা হয়। এভাবে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ওই চক্রের লোকজন। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে হয়রত নিজাম উদ্দিন (রহঃ) আউলিয়ার মাজার এলাকায় পুরাতন বিদ্যুত লাইনের খুঁটি ও তার নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। শাহাদত খান পাঠানের পুত্র গ্রাহক মোজাফ্ফর (৪০) অভিযোগ করে সাংবাদিকদের জানান, চক্রের সদস্য মোখশেদ খানকে নগদ ১০ হাজার টাকা দিয়ে তার বাড়িতে বিদ্যুত সংযোগ নিয়ে নিয়মিত বিল পরিশোধ করে আসছেন। পরে তার মায়ের ঘরে একটি বাতির লাইন দেয়ায় আরো ৫ হাজার টাকা দাবি করা হয়। টাকা দিতে না পারায় তার মিটারের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এরকম আরো অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে ওই চক্রের বিরুদ্ধে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী বিদ্যুত গ্রাহকরা ওই চক্রের সদস্য মরহুম রুস্তম আলীর ছেলে আজিজুল (৫০), মরহুম আরশাদ মাষ্টারের ছেলে মাসুদ (৩৫), মরহুম মুরাদ খানের ছেলে আহাম্মদ (৫০) মরহুম কাদিরের ছেলে মোখলেছ (৫০), আব্দুল ওয়াহেদের ছেলে মামুন (২০), মরহুম হরমূজ আলীর পুত্র নবুজ (৪০), মরহুম ইন্তা ফকিরের পুত্র আবুল হাশিম (৫৫), মরহুম ইমানত খানের পুত্র আব্দুল হামিদ (৫৫) ও সিরাজ খার পুত্র কদরের বিরুদ্ধে গৌরীপুর আবাসিক বিদ্যুত প্রকৌশলীর বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। সরজমিনে গেলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় অভিযুক্ত ব্যক্তিরা জানান, বিদ্যুত অফিসের কর্মকর্তাদের খুঁটি, তার, ট্রান্সফরমার ইত্যাদি সরমঞ্জামাদি ক্রয় বাবদ এককালীন নগদ টাকা দিয়ে উক্ত বিদ্যুত লাইন স্থাপন করা হয়েছে। এর জন্য আমরা একটি সমিতি গঠন করে টাকা উত্তোলন পূর্বক বিদ্যুত লাইনটি পরিচালনার জন্য একটি নীতিমালা প্রনয়ন করি। যা ষ্ট্যাম্পে উল্লেখ রয়েছে। এবিষয়ে গৌরীপুর আবাসিক বিদ্যুত প্রকৌশলীর কার্যালয়ের অফিস সহকারি আবুল মনসুর জানান, উল্লেখিত এলাকায় নতুন বিদ্যুত লাইন স্থাপনে নিয়ম বর্হিভূত কোন টাকা নেয়া হয়নি। স্যার এ বিষয়ে তদন্তপূর্বক জড়িদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিবেন। #

Related posts:

About fulbaria

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*