ব্রেকিং নিউজঃ-
Home » ফুলবাড়িয়া » বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে দূর্গাপূজার বিসর্জন

বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে দূর্গাপূজার বিসর্জন

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0

picture-03শহিদুল ইসলাম, ফুলবাড়িয়া নিউজ 24ডটকম : শুক্রবার ছিল শারদীয় দুর্গোৎসবের মহানবমী। মা দেবী দুর্গাকে বিদায়ের আয়োজনে বিষণœ মন নিয়ে উৎসবে মেতেছিলেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। হাজার হাজার ভক্ত, পূজারি এবং দর্শনার্থী বিভিন্ন পূজা মন্ডপগুলোতে ঘুরে ঘুরে প্রতিমা দর্শন করেছেন। ঢাক-ঢোলের বাদ্য বাজনা, আরতি ও পূজারি ভক্তদের পূজা অর্চনা ছিল কেবল মা দুর্গার বিদায়ের আয়োজন। গতকাল ছিল বিজয়া দশমী প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় শারদীয় দুর্গোৎসব। শনিবার ভোরের আলো ফোটার আগেই মন্দির প্রাঙ্গণে শুরু হয় উলু ধ্বনি আর মা দুর্গাকে বিদায়ের প্রস্তুতি। মা দুর্গা বিদায়ে যেন সবার চোখ ছিল অশ্রুসিক্ত ও বেদনা বিধুর। সকালে দেবীর দশমীবিহিত পূজা সমাপন ও দর্পণ বিসর্জন এবং শান্তিজল গ্রহণের মধ্যদিয়ে শেষ হয়েছে। মা দেবীকে এবারের মত শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় বৈরী আবহাওয়া উপো করে ফুলবাড়ীয়া বাজার বড় পুকুরের চারদিকে ভক্তদের উপচেপড়া ভিড় ও আনন্দমুখর পরিবেশ ল্য করা যায়। মা দুর্গা পেছনে ফেলে গেছেন অসংখ্য ভক্তদের শ্রদ্ধা ও আনন্দমাখা চোখের জল। আর রেখে গেছেন আগামী বছরে ফিরে আসার অঙ্গীকার। প্রতিমা বিজর্সনের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার লীরা তরফদার, থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ কবিরুল ইসলাম, পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি শ্রী শ্যামল রতন দে সহ হিন্দু ধর্মের অসংখ্য ভক্তবৃন্দ। পঞ্জিকামতে জানা যায়, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার নৌকায় চড়ে মর্ত্যলোকে (পৃথিবী) এসেছেন। ঘোড়ায় চড়ে দেবী দুর্গা স্বর্গলোকে বিদায় নেন। শুভ বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা বলেছেন ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার’- এই মন্ত্রকে ধারণ করে সুখী-বৈষম্যহীন অসাম্প্রদায়িক সমাজ গড়ে তোলার প্রেরণা হোক এবারের দুর্গোৎসবের মূল চেতনা। পাঁচ দিনের এই দুর্গোৎসবকে ঘিরে প্রশাসনের প থেকে নেয়া হয়েছিল কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুলিশের পাশাপাশি ছিল আনসার মোতায়েন। যার দরুণ কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

Related posts:

About fulbaria

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*